রবীন্দ্রপ্রসঙ্গ

রবীন্দ্রনাথের প্রথম প্রকাশিত রচনা কী এ নিয়ে বহু বিতর্ক ছিল। কিন্তু সেই বিতর্কের অবসান ঘটিয়েছিলেন শনিবারের চিঠির সম্পাদক সজনীকান্ত দাস। সজনীকান্ত শুধু প্রথম প্রকাশিত রচনারই কথা বলেননি, সেইসঙ্গে বেনামীতে রচিত রবীন্দ্রনাথের বহু রচনার সন্ধান দিয়েছেন। পাশাপাশি রবীন্দ্রনাথের যে বহু ছদ্মনাম ছিল তারও সন্ধান দিয়েছেন।
এইপ্রসঙ্গে বিস্মিত রবীন্দ্রনাথ সজনীকান্তকে চিঠি লিখে তাঁর বিস্ময় প্রকাশ করেছেন এবং স্বীকার করেছেন তাঁর প্রথম রচনা “অভিলাষ”। নিম্নে সজনীকান্তকে লেখা সেই চিঠি সম্পূর্ণ উদ্ধৃত হলো।  

       

আরো পড়ুন :  এক পোস্টমাস্টার এবং রবীন্দ্রনাথের 'পোস্টমাস্টার' গল্প
সজনীকান্ত দাসকে লেখা রবীন্দ্রনাথের চিঠি

মূল চিঠি :

“শ্রীমান সজনীকান্ত দাস আমার বাল্য ও কৈশোর এর বেনামী রচনাগুলি আবিষ্কার করে আমাকে বিস্মিত করেছেন। পুরাতন তত্ত্ববোধিনী পত্রিকায় আমার সর্বপ্রথম মুদ্রিত রচনা “অভিলাষ” তাঁহার অভিনব আবিষ্কার। ইহার অস্তিত্ব সম্বন্ধে আমার বিস্তৃতি ঘটেছিল। জ্যোতিদাদার প্রথম চারটি নাটকের অধিকাংশ কবিতা এবং গান যে আমার রচনা তা সজনীকান্তের তীক্ষ্ণ দৃষ্টি এড়ায় নি। হিন্দুমেলায় দিল্লিদরবার সম্বন্ধে আমার পঠিত কবিতাটি স্বপ্নময়ী’তে আত্মগোপন করেছিল সেটাও সজনীকান্তের ইঙ্গিতে ধরা পড়েছে। সজনীকান্ত প্রদত্ত নিম্নলিখিত তালিকাধৃত রচনাগুলি নিঃসংশয়রূপে আমার। কিন্তু পরবর্তী তালিকার রচনাগুলি সম্বন্ধে আমি নিঃসংশয় হতে পারিনি। আমি যে দিকশূন্য ভট্টাচার্যঅপ্রকটচন্দ্র ভাস্কর ইত্যাদি ছদ্মনামে এককালে অনেক লেখাই লিখেছি তা জেনেও বেশ কৌতুক বোধ করছি। এখানে বলা আবশ্যক শেষোক্ত নামটি কোনো লেখকের অন্য কোনো কোনো রচনায় আত্মসাৎ করেছেন বলে আমার সন্দেহ হচ্চে।”

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর 
২১/১১/৩৯
শান্তিনিকেতন 
—————————————-++++—————-
সূত্র : রবীন্দ্রসংখ্যা, শনিবারের চিঠি, আশ্বিন ১৩৪৮
আরো পড়ুন :  রবীন্দ্র উপন্যাসের ইংরাজি অনুবাদ [ English Version Of Rabindranath's Novel ]